|

কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যা মামলার প্রধান আসামি ‌‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

Published: Thu, 02 Dec 2021 | Updated: Thu, 02 Dec 2021

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ১৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সৈয়দ মো. সোহেল (৪৫) ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সদস্য হরিপদ সাহাকে (৫৫) গুলি করে হত্যা মামলার প্রধান আসামি শাহ আলম (২৮) পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুযুদ্ধে’ নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (০২ ডিসেম্বর) রাত ২টায় নগরীর চাঁনপুরস্থ গোমতী নদীর বেড়িবাঁধ এলাকায় ঘটানটি ঘটে। 

কুমিল্লা জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের উপপরিদর্শক পরিমল দাস বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এ সময় পুলিশ একটি ৭.৬৫ পিস্তল, গুলির খোসা ও কাতুর্জের খোসা উদ্ধার করেন। বন্দুকযুদ্ধে পুলিশের দুই সদস্য আহত হন। আহতদের চিকিৎসার জন্য পুলিশ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। শাহ আলম নগরীর সুজানগর এলাকার মৃত জানু মিয়ার ছেলে।

জেলা ডিবি পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চাঁনপুরস্থ গোমতী নদীর বেড়িবাঁধে ডিবি পুলিশের একাধিক দল অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে এলোপাথারি গুলি ছুড়তে থাকে। পুলিশও পাল্টা গুলি করলে দুষ্কৃতিকারিরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে আহতবস্থায় শাহ আলমকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এর আগে গত মঙ্গলবার রাতে ওই হত্যা মামলার ৩ নম্বর আসামি নগরীর সুজানগর এলাকার রফিক মিয়া ছেলে মো. সাব্বির রহমান (২৮) ও মামলার ৫ নম্বর আসামি নগরীর সংরাইশ এলাকার কাকন মিয়ার ছেলে সাজন (৩২) পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন।

উল্লেখ্য, গত ২২ নভেম্বর বিকাল সাড়ে ৪টায় কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ১৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সৈয়দ মো. সোহেল ও তার সহযোগী হরিপদ সাহাকে প্রকাশ্যে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন।

-এমজে