|

অষ্টগ্রামে হিন্দু পরিবারের আড়াই কোটি টাকার জায়গা দখলের অভিযোগ

Published: Thu, 21 Oct 2021 | Updated: Thu, 21 Oct 2021

বিজয় কর রতন, মিঠামইন (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রাম উপজেলার পূর্ব অষ্টগ্রাম ইউনিয়নের পরাশর পাড়া গ্রামের উত্তম চন্দ্র শীল নামে এক হিন্দু পরিবারের কর্তা বাদী হয়ে একই গ্রামের নুরু মিয়া সহ ৭ জনের বিরুদ্ধে ২ একর ৩৭ শতাংশ জায়গা জোড় পূর্বক দখল করে নেয়ার অভিযোগ দায়ের করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবর। 

অভিযোকারী উত্তম চন্দ্র শীল অভিযোগে উল্লেখ করেছেন, তার বাবা বিশ্বনাথ শীল মৃত্যুবরণ করার পর সে জানতে পারে যে, তাদের ২ একর ৩৭ শতাংশ জমি তার পৈতিক সম্পত্তি। বর্তমানে এসকল জায়গা নুরু মিয়া গংদের দখলে রয়েছে। এসকল জমি বর্তমান বাজার মূল্য আড়াই কোটি টাকা হবে বলে তিনি অভিযোগে উল্লেখ করেছেন। 

এ বিষয়ে তার বাবা মারা যাওয়ার পর থেকেই দীর্ঘদিন যাবৎ স্থানীয় চেয়ারম্যান ও গণ্যমান্যদের দ্বারস্থ হয়েও কোন প্রতিকার পাননি । অবশেষে ভয়ে সে এ আবেদন করেছেন। তিনি বর্তমানে পরিবার পরিজন নিয়ে অন্যের বাড়িতে বসাবাস করছেন। বিবাদীরা অত্যন্ত প্রভাবশালী। তারা প্রতিনিয়ত তাকে নানাভাবে হুমকি দিয়ে আসছে বলে তিনি জানান। 

তিনি আরো জানান, আবেদন করার পর ইউএনও সাহেব স্থানীয় চেয়ারম্যানকে দায়িত্ব দিয়েছেন বিষয়টি দেখার জন্য। কিন্তু সামনে নির্বাচন চেয়ারম্যান কোন কাজ করছেন না। তিনি বর্তমানে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছন। যে কোন সময় তার পরিবারের উপর হামলা  আসতে পারে বলে আশংকা করছেন। 

পূর্ব অষ্টগ্রামের ইউপি চেয়ারম্যান মো. কাসাদ মিয়ার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, তিনি ইউএনও অফিস থেকে চিঠি পেয়েছেন বিষয়টি গ্রাম্য আদালতের মাধ্যমে নিস্পত্তি করার জন্য। সময়ের অভাবে বিষয়টি নিয়ে বসা সম্ভব হয়নি। তবে জরুরি ভিত্তিতে এ ব্যাপারে বসবেন বলে তিনি জানান। 

অভিযুক্ত নুরু গং এর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদের পাওয়া যায়নি। (ফোন নাম্বার ০১৭৪১১৪০২৮৬) তবে একই গ্রুপের কাজল মিয়া সাথে কথা হয়। তিনি জানান, নুরু মিয়া অসুস্থ। এ সকল অভিযোগ মিথ্যা। আমাদের নিকট জমির ক্রয়ের দলিল রয়েছে। প্রয়োজনে এগুলো আমরা উপস্থাপন করবো। এ নিয়ে এলাকায় কয়েক দফা শালিসও হয়েছে। অভিযোগের খবর আমরা পেয়েছি।

অষ্টগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রফিকুল আলমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে গ্রাম্য আদালতের মাধ্যমে বিষয়টি নিস্পত্তি করার জন্য চেয়ারম্যানকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। নিস্পত্তি না হলে তদন্তপূর্বক প্রযোজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

ডব্লিউইউ