|

সুবর্নচরে বাল্যবিয়েতে কনের মাকে অর্থদণ্ড, আটক ১

Published: Tue, 31 Aug 2021 | Updated: Tue, 31 Aug 2021

মো. জাহাঙ্গীর আলম, নোয়াখালী প্রতিনিধি: নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরব্যাগা গ্রামে পুলিশের হস্তক্ষেপে বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেয়েছে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রী (১৫)। এ ঘটনায় অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়েকে বিবাহ দেওয়ার অপরাধে মেয়ের মাকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করে এবং মেয়ে প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবে না বলে বলে মুছলেখা দিয়ে রক্ষা পান।

মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) দুপুর ৩টার দিকে সুবর্নচর উপজেলার ২নং চর জুবলী ইউনিয়নের চরব্যাগা গ্রামে ওই ঘটানা ঘটে। ওই স্কুল ছাত্রী চরব্যাগা গ্রামের জামাল উদ্দিনের মেয়ে এবং স্থানীয় পাঙ্কার বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী।

চরজব্বর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. জিয়াউল হক জানান, কনের মা লক্ষীপুর জেলার রামগতি উপজেলার চরকাজী ইউনিয়নের এক ছেলের সাথে অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়ের বিয়ে ঠিক করেন। পূর্ব নিধারিত তারিখ অনুসারে মঙ্গলবার দুপুরে কনের বাড়িতে মূল বিয়ের অনুষ্ঠান চলছিল। গোপন সংবাদে বাল্যবিয়ের খবর শুনে চরজব্বর থানার একদল টহল পুলিশ গোপনে ঘটনাস্থলে পৌঁছে বাল্য বিবাহের সংবাদটি অবহিত করেন। এরপর ওসি ওই সংবাদটি তাৎক্ষণিক সুবর্নচর উপজেলা নির্বাহী জানান। এরপর নির্বাহী অফিসারের নির্দেশে কর্তব্যরত পুলিশ বাল্যবিবাহ বন্ধ করেন। কনের মাকে নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে হাজির করলে নির্বাহী অফিসার ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে কনের মাকে দশ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করেন।

সুবর্ণচর উপজেলা নিবাহী অফিসার (ইউএনও) চৈতী সর্ববিদ্যা বলেন, বাল্য বিয়ের আয়োজন করায় বাল্য বিয়ে নিরোধ আইনে কনের মাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে দশ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়েছে। বরের বাবাকে আটক করা হয়েছে। বরের জন্য খবর দেওয়া হয়েছে। বর এলে বর পক্ষের বিরুদ্ধেও আইনগত প্রদক্ষেপ নেওয়া হবে। তবে বর না আসলে তার পিতাকে কারাগারে পাঠানো হবে।

 

ডব্লিউইউ