|

টিকা: এনআইডিবিহীনদের জন্মনিবন্ধন চেয়েছে জবি

Published: Sun, 19 Sep 2021 | Updated: Sun, 19 Sep 2021

জবি প্রতিনিধি: বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের কোভিড-১৯ টিকা প্রদান সাপেক্ষে খুব দ্রুতই বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সরকার। এরই পরিপ্রেক্ষিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের মধ্যে যাদের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) নেই, এমন শিক্ষার্থীদের করোনা টিকা দিতে জন্মনিবন্ধন নম্বর চেয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এজন্য ২১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নিজেদের স্টুডেন্ট পোর্টালে লগইন করে নির্ধারিত ফিল্ডে তথ্য ইনপুট দিতে হবে।

রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার দপ্তর থেকে এসব তথ্য জানা যায়। এর আগে এ ব্যাপারে শনিবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. ওহিদুজ্জামান স্বাক্ষরিত একটি বিজ্ঞপ্তিও প্রকাশিত হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত বা গবেষণারত ১৮ বা ১৮ বছরের বেশি বয়সের শিক্ষার্থীদের যাদের জাতীয় পরিচয়পত্র নেই এমন শিক্ষার্থীদের কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রদানের লক্ষ্যে শিক্ষার্থীরা তাদের জন্মনিবন্ধন নম্বর নিজ নিজ স্টুডেন্ট পোর্টালে লগইন করে নির্ধারিত ফিল্ডে আগামী ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ তারিখের মধ্যে তথ্যাদি ইনপুট দেয়ার জন্য অনুরোধ করা হলো। পরবর্তীতে তাদের জন্মনিবন্ধনের তথ্যাদি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মাধ্যমে www.surokkha.gov.bd ওয়েব সাইটে সংযুক্ত করার পর তাদেরকেও একই ওয়েব সাইটের (www.surokkha.gov.bd) মাধ্যমে টিকা গ্রহণের নিমিত্তে নিবন্ধন করতে হবে।’

এছাড়াও যেসব শিক্ষার্থীর জাতীয় পরিচয় পত্র আছে তাদের সরাসরি www.surokkha.gov.bd ওয়েব সাইটের মাধ্যমে জরুরি ভিত্তিতে টিকা গ্রহণের জন্য নিবন্ধন করে কোভিড ১৯ ভ্যাকসিন গ্রহণ করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে।

এর আগে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসেই শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা গ্রহণের ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

উল্লেখ্য, গত ৩ জুন প্রথম ধাপে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী এবং এমফিল ও পিএইচডি গবেষকদের করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকার আওতায় আনতে প্রজ্ঞাপন জারি করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ১০ জুন পর্যন্ত চলা এ রেজিস্ট্রেশনে মোট ৯৪৫৪ জন শিক্ষার্থী আবেদন করেন। পরে দ্রুত টিকা প্রাপ্তির লক্ষ্যে শিক্ষার্থীদের এ তালিকা ইউজিসি ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। এরপর দ্বিতীয় ধাপে ১৮ আগস্ট থেকে ২৩ আগস্টের মধ্যে শিক্ষার্থীদের এনআইডির তথ্য চায় বিশ্ববিদ্যালয়। তবে তখন সুরক্ষা ওয়েবসাইটে ১৮ বা তদূর্ধ্ব শিক্ষার্থীদের টিকার আবেদন শুরু হওয়ায় এ রেজিষ্ট্রেশন প্রক্রিয়ার আর প্রয়োজন পড়েনি।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে বিভিন্ন অনুষদ, ইনস্টিটিউট, এম. ফিল. ও পিএইচডি শিক্ষার্থীর সংখ্যা সর্বমোট ১৪৫৬৫ জন।

 

ডব্লিউইউ