|

নির্বাচনকালীন সরকার পদ্ধতি নির্ধারণ রাজনৈতিক বিষয়: ইসি

Published: Wed, 03 Aug 2022 | Updated: Wed, 03 Aug 2022

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সংলাপে কিছু রাজনৈতিক দল তত্ত্বাবধায়ক এবং বেশির ভাগই নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে সংসদ নির্বাচনের দাবি করেছে। নির্বাচন কমিশনার আহসান হাবীব খান বলছেন, নির্বাচনকালীন সরকার পদ্ধতি নির্ধারণ পুরোপুরি রাজনৈতিক ও সরকারের বিষয়। নির্বাচনের সময় যে সরকারই থাকুক ইসি নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালন করবে।

নির্বাচন বিশ্লেষকরা বলছেন, শুধু দলগুলোর দাবি অবহিত করা নয়, গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করতে তত্ত্বাবধায়কের বিকল্প বা করণীয় বিষয়ে সরকারকে ফর্মুলা দিতে পারে ইসি।

সংসদ নির্বাচন নিয়ে নির্বাচন কমিশনের সংলাপে প্রধান আলোচ্য বিষয় ছিল নির্বাচনকালীন সরকার। কেমন সরকারের অধীনে নির্বাচন চান, সে বিষয়ে মতামত প্রকাশ করেছে দলগুলো। কিছু দল তত্ত্বাবধায়ক সরকার, বেশির ভাগ দল নিরপেক্ষ বা সর্বদলীয় সরকার এবং তিনটি দল বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচন চেয়েছে।

এ প্রসঙ্গে নির্বাচন কমিশনার আহসান হাবীব খান বললেন, কোন পদ্ধতির সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে তা ক্ষমতাসীন সরকার ঠিক করবে। তবে যে সরকারই থাকুক তারা নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসিকে সহযোগিতা করবে।

নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আহসান হাবীব খান বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার অথবা অন্তর্বর্তীকালীন সরকার, এই বিষয়টি কিন্তু নির্বাচন কমিশনের (ইসি) বিষয় না। ইসির চিন্তার কোনো কারণ না। এটা একটা সাংবিধানিক বিষয়। সংবিধানে যেভাবে লেখা আছে, বা সংবিধান অনুমতি দেয়, সেভাবেই তখন সরকার থাকবে।

তিনি বলেন, আমাদের ঐকান্তিক ইচ্ছা ও প্রত্যাশা-যে সরকারই তখন থাকুক না কেন? সেই সরকার আমাদের আন্তরিকভাবে সহায়তা করবে। এ ব্যাপারে আমরা খুব আশাবাদী।

গোপন নয়, নির্বাচন সংক্রান্ত বড় ধরনের সিদ্ধান্ত সবই প্রকাশ্যে আনা হবে বলে জানান এই কমিশনার।

তিনি বলেন, যেসব প্রস্তাব এসেছে, সেগুলো নিয়ে আমরা আলোচনা করে সামারাইজ করব। যেসব বিষয়গুলো আমাদেরকে সংবিধান অনুমতি দেয়, সেগুলো আমরা পালন করার চেষ্টা করব। আর যেগুলো সরকারের ওপর ন্যস্ত, সেগুলো আমরা সরকারের কাছেই পাঠাব।

তিনি আরও বলেন, কোনো গোপনীয়তা বলতে কিছু নেই। আমরা কিন্তু জনগণের কাছে প্রত্যেকটা জিনিস উন্মোচিত করব।

নির্বাচন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তত্ত্বাবধায়কের বিকল্প হিসেবে কোন ধরনের সরকারের অধীনে কমিশন আরও স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারবে, তা নিয়ে ইসি সরকারকে প্রস্তাব দিতে পারে।

নির্বাচন বিশ্লেষক ড. আব্দুল আলীম বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অনুপস্থিতিতে নির্বাচনটা সুন্দর করতে কী কী করণীয়, তার একটা কর্মতালিকা ইসি তৈরি করতে পারে। নির্বাচন কমিশনকে নির্বাচনের সময় একটি ডি-ফ্যাক্টো সরকারের ভূমিকায় অবতীর্ণ হওয়ার সুযোগ দিতে হবে।

গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের স্বার্থে নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে সরকারের পক্ষ থেকেও সংলাপ শুরু করা যেতে পারে মনে করেন নির্বাচন বিশ্লেষকরা।

আইআর /