|

মিয়ানমারে রেল শ্রমিকদের ঘিরে ফেলেছে নিরাপত্তা বাহিনী

Published: Wed, 10 Mar 2021 | Updated: Wed, 10 Mar 2021

অভিযাত্রা ডেস্ক : মিয়ানামারের বৃহত্তম শহর ইয়াঙ্গনে রেলওয়ের ধর্মঘটী শ্রমিকদের স্টাফ কম্পাউন্ড ঘিরে ফেলেছে নিরাপত্তা বাহিনী। রেলওয়ের এ শ্রমিকরা সামরিক বাহিনীর ক্ষমতা দখল করার বিরোধিতা করে চলমান আইন অমান্য আন্দোলনের অংশ হিসেবে ধর্মঘট পালন করছে। 

১ ফেব্রুয়ারি অং সান সু চির দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্র্যাসির (এনএলডি) নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে সামরিক জান্তা দেশটির নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর থেকে আইন অমান্য আন্দোলন শুরু করেছেন বিভিন্ন সরকারি খাতের কর্মকর্তা, কর্মচারীরা। 

এতে ব্যাংকগুলোসহ সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে, পাশাপাশি ধর্মঘটের কারণে কল-কারখানা ও দোকানপাটও বন্ধ রয়েছে। 

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, বুধবার (১০ মার্চ) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা ফুটেজে রেলওয়ের স্টাফ কম্পাউন্ডের কাছে নিরাপত্তা বাহিনীর উপস্থিতি দেখা গেছে। ধর্মঘটরত একজন শ্রমিক টেলিফোনে রয়টার্সকে বলেছেন, শিগগিরই দমনাভিযান শুরু হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তারা।  

নিজেকে শুধু মা সু হিসেবে পরিচয় দেওয়া ওই ব্যক্তি বলেন, “আমার মনে হচ্ছে তারা আমাদের গ্রেপ্তার করবে। আমাদের সাহায্য করুন।” ওই এলাকা থেকে ফেইসবুকে এক সরাসরি স¤প্রচারে লোকজন শ্লোগান দিচ্ছিল, “আমরা কর্মীরা কি ঐক্যবদ্ধ? হ্যাঁ, আমরা ঐক্যবদ্ধ।” 

পুলিশ ব্যারিকেড সরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে এবং তাদের গুলি করার হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন একজন। বিস্তারিত তাদের পক্ষে স্বাধীনভাবে যাচাই করা সম্ভব হয়নি বলে রয়টার্স জানিয়েছে। পুলিশ বা সেনাবাহিনীর কর্মকর্তারা মন্তব্যের অনুরোধেও সাড়া দেয়নি বলে জানিয়েছে তারা। 

মিয়ানমারের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর মান্দালয়ে বুধবার জান্তাবিরোধী আন্দোলনকারীরা অবস্থান ধর্মঘট করছে, ‘বিপ্লব অব্যশই জয়ী হবে’ বলে শ্লোগান দিচ্ছে তারা।  দেশব্যাপী প্রতিবাদ দমনে প্রতিদিনই আরও বেশি শক্তি নিয়ে মাঠে নামছে নিরাপত্তা বাহিনী। 

এতে মিয়ানমারজুড়ে বিরাজমান টালমাটাল পরিস্থিতি আরও অশান্ত হয়ে উঠছে। সামরিক অভ্যুত্থানের পর থেকে ৬০ জনেরও বেশি বিক্ষোভকারী নিহত এবং এক হাজার ৯০০ জনেরও বেশি গ্রেপ্তার হয়েছেন বলে দেশটির আইনজীবীদের একটি গোষ্ঠী জানিয়েছে।

আইআর /