|

মেটার ভিআরে শিশু নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কায় নিয়ন্ত্রকরা

Published: Thu, 13 Jan 2022 | Updated: Thu, 13 Jan 2022

ফেসবুকের পরিবর্তিত নাম মেটার ভার্চুয়ালি রিয়ালিটি (ভিআর) হেডসেট ব্যবসা আদৌ শিশু নিরাপত্তা নীতিমালা মেনে চলে কিনা, এমন প্রশ্নে সন্দিহান বাজার নিয়ন্ত্রকরা। তাই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মুখোমুখি হতে হচ্ছে শীর্ষ সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকের মালিকানা প্রতিষ্ঠান মেটা প্ল্যাটফরম ইনকরপোরেটেডের শীর্ষ কর্মকর্তাদের।

ইদানিং অভিযোগ উঠেছে মেটা’র অকুলাস প্ল্যাটফরমে তৃতীয়পক্ষীয় ভিআর অ্যাপে অপ্রাপ্তবয়স্কদের হয়রানির বিষয়ে। এদিকে যুক্তরাজ্যের বাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা ‘ইনফরমেশন কমিশনার্স অফিস (আইসিও)’র ‘শিশু নীতিমালা’র মূল উদ্দেশ্য-যে অনলাইন সেবাগুলোয় শিশু বা অপ্রাপ্তবয়স্কদের প্রবেশের সুযোগ রয়েছে, ওই সেবাগুলো যেন বয়স অনুযায়ী তাদের ব্যবহারের উপযোগী হয়।

তবে অকুলাস প্ল্যাটফরমের অ্যাপ ‘ভিআরচ্যাট’-এ অপ্রাপ্তবয়স্কদের হয়রানির অভিযোগ তুলেছেন অনলাইন অধিকারকর্মীদের একটি সংগঠন। এ পরিস্থিতিতে মেটা বলছে, শিশু নিরাপত্তা বিষয়ক নীতিমালার প্রয়োগ নিশ্চিত করতে আইসিও-র সঙ্গে কাজ করবে তারা। ‘নীতিমালার অধীনে দায়বদ্ধতা পূরণে এবং তরুণদের বয়স উপযোগী অভিজ্ঞতা দিতে আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।’

অকুলাসের নিজস্ব নীতিমালা অনুযায়ী, ১৩ বছরের বেশি হতে হবে ব্যবহারকারীর বয়স। ‘শিশুরা কীভাবে অকুলাস ডিভাইস ব্যবহার করছে, তার ওপর প্রাপ্তবয়স্কদের নজর রাখা উচিত’- বলা আছে ওই নীতিমালায়।

তবে, ব্যবহারকারীর বয়স নিশ্চিত করতে অকুলাস যে কৌশল অবলম্বন করছে তা যথেষ্ট নয় বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

সাইবার অধিকারকর্মীদের সংগঠন ‘সেন্টার ফর কাউন্টারিং ডিজিটাল হেইট (সিসিডিএইচ) অকুলাস প্ল্যাটফরমে শিশুদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে।’ সংস্থাটির নজর পড়েছে অকুলাস প্ল্যাটফরমের তৃতীয়পক্ষীয় অ্যাপ ‘ভিআরচ্যাট’-এর ওপর।

অ্যাপটিতে নিজের পছন্দমতো একটি ‘ভার্চুয়াল পরিবেশ’ তৈরি করতে পারেন ব্যবহারকারী। তারপর সেখানেই অন্যদের সঙ্গে যোগাযোগ বা আলাপচারিতা চলিয়ে যেতে পারেন। সেখানে একটি ‘ভার্চুয়াল পরিবেশে’ ঢুকেছিলেন গবেষকরা। ওই ‘ভার্চুয়াল পরিবেশ’টি যৌনতা বিষয়ক হলেও সেটিকে ১৩ বা তার বেশি বয়সি শিশুদের ব্যবহারের উপযোগী বলে চালানো হচ্ছিল।

যুক্তরাজ্যের ‘ন্যাশনাল সোসাইটি ফর দ্য প্রিভেনশন অফ ক্রুয়েলটি টু চিলড্রেন’-এর অনলাইন শিশু নিরাপত্তা নীতিমালা প্রধান অ্যান্ডি বারোসও ‘ভার্চুয়াল পরিবেশে’ শিশুদের নিরাপত্তা নিয়ে নিজের শঙ্কার কথা জানিয়েছেন। ‘অকুলাস ব্যবহারের সময়েও ক্ষতিকর ও নেতিবাচক কনটেন্টের মুখে পড়তে পারে শিশুরা। এখান থেকেই গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নটি উঠছে, মেটা আদৌ শিশু নীতিমালা মেনে চলছে কি না।’

 

ডব্লিউইউ