|

বাংলাদেশে টিকার ট্রায়াল চালাতে আগ্রহী ভারত বায়োটেক

Published: Fri, 22 Jan 2021 | Updated: Fri, 22 Jan 2021

অভিযাত্রা ডেস্ক : ভারতীয় টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ভারত বায়োটেক তাদের করোনাভাইরাসের টিকা নিয়ে বাংলাদেশে পরীক্ষা চালানোর অনুমতি চেয়েছে। বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিলের এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ তথ্য জানিয়েছে।

কাউন্সিলের এথিকস কমিটির প্রধান জাতীয় অধ্যাপক ডা. শাহলা খাতুনও বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তার বরাতে বিবিসি বাংলা জানায়, ভারতীয় এই কোম্পানির টিকা নিয়ে ট্রায়ালের আবেদন তাদের কমিটিতেই আসবে। সেখানে তারা পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বিষয়টি নিয়ে তাদের মতামত জানাবেন। তবে এ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষই নেবেন।

ভারত বায়োটেকের টিকার ট্রায়াল চালানোর অনুমোদন যদি দেওয়া হয়, সেটি হবে বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের টিকা নিয়ে প্রথম কোনো পরীক্ষা।

বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিলের পরিচালক মাহমুদ-উজ-জাহান রয়টার্সকে জানিয়েছেন, ভারত বায়োটেকের কাছ থেকে এরকম একটি প্রস্তাব তারা পেয়েছেন। কাউন্সিলের এথিকস কমিটি এই আবেদন বিবেচনা করে মতামত দেবে।

তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন তিনি।

ঢাকা ভিত্তিক ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর ডায়ারিয়াল ডিজিজ (আইসিডিডিআরবি) ভারত বায়োটেকের তরফ থেকে এই টিকার ট্রায়াল চালানোর জন্য আবেদন করেছে বলে একটি সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে রয়টার্স।

বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিলের এথিকস কমিটির প্রধান এবং জাতীয় অধ্যাপক ডা. শাহলা খাতুন এরকম একটি ট্রায়াল চালানোর আবেদন জমা পড়ার কথা স্বীকার করেছেন। টিকা নিয়ে ট্রায়াল চালানোর অনুমতি দেওয়ার ক্ষেত্রে কোন কোন বিষয় বিবেচনা করা হয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, তারা মূলত এ ধরনের গবেষণার নৈতিক এবং নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়গুলো দেখেন।কতসংখ্যক মানুষের ওপর এবং কীভাবে এই ট্রায়াল চালানো হবে, টিকার কোনো বিরূপ প্রতিক্রিয়া হলে তার প্রতিকার কী হবে, সেগুলো সামাল দেওয়ার ব্যবস্থা কী আছে- এরকম নানা বিষয় তারা বিবেচনা করবেন।

এর আগে চীনের একটি কোম্পানির কাছ থেকেও একটি টিকা নিয়ে পরীক্ষার প্রস্তাব এসেছিল, কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেই প্রস্তাব আর অগ্রসর হয়নি বলে স্বীকার করেন তিনি।

সিনোভ্যাক বায়োটেকের টিকার ট্রায়ালের প্রস্তাব কেন অনুমোদন করা যায়নি- সে প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, এটি তার ভালো করে জানা নেই।

তবে তিনি বলেন, হয়তো এই ট্রায়ালে যৌথভাবে তহবিল জোগানোর প্রস্তাব বাংলাদেশের কাছে গ্রহণযোগ্য হয়নি।

ও/এসএ/