|

দেশজুড়ে ঈদে মিলাদুন্নবী পালন

Published: Sat, 31 Oct 2020 | Updated: Sat, 31 Oct 2020

অভিযাত্রা ডেস্ক : যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে গত শুক্রবার সারাদেশে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবি (স.) পালিত হয়েছে। এদিন ছিল বিশ্ব মানবতার মুক্তির দিশারি সর্বশ্রেষ্ঠ নবি হযরত মোহাম্মদ (স.)-এর জন্ম ও ওফাত দিবস। দিনটি পালন করতে দেশব্যাপী নানা আয়োজন করে বিভিন্ন ধর্মীয় সংগঠন।

বিশ্বনবির জন্মদিন ও ওফাত দিবস উপলক্ষে প্রতি বছর ১২ রবিউল আউয়ালকে অতীব গুরুত্বপূর্ণ দিন হিসেবে পালন করে মুসলিম বিশ্ব। এ উপলক্ষে তারা রোজা রাখা, সীরাতুন্নবির (স.) আলোচনা, দরুদ পাঠ, দান-সদকা করে থাকেন। মিষ্টি, খাবার প্রভৃতি তৈরি করে বিতরণ করেন। ভক্তিভরে দরুদ পাঠে মশগুল থাকেন। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি।

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উদযাপন উপলক্ষে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের (ইফা) উদ্যোগে সারাদেশে ব্যাপক অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করা হয়। ১৫ দিনব্যাপী ওয়াজ ও মিলাদ মাহফিল, ইসলামি সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা, সেমিনার, ক্বিরাআত মাহফিল, হামদ-নাত ও স্বরচিত কবিতা পাঠের আসরের আয়োজন করেছে ইফা।

বৃহস্পতিবার বাদ মাগরিব ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মুকাররম মিলনায়তনে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম প্রধান অতিথি হিসেবে পক্ষকালব্যাপী বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ইফার বোর্ড অব গভর্নরসের গর্ভনররা উপস্থিত ছিলেন।

সভাপতিত্ব করেন ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নূরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক আনিস মাহমুদ। এছাড়া ইতোপূর্বে বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদে বাদ মাগরিব ও বাদ এশা ১৫ দিনব্যাপী দেশবরেণ্য বিশিষ্ট আলেম-ওলামাদের ওয়াজ মাহফিল অনুষ্ঠিত হতো।

বর্তমান কোভিড -১৯ সংক্রমণ পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যঝুঁকির আশঙ্কা থাকায় দেশবরেণ্য বিশিষ্ট আলেম-ওলামাদের ওয়াজ লাইভে জুম অ্যাপস, ফেসবুক, ইউটিউবে প্রচারের ব্যবস্থা করা হয়। এ ছাড়া প্রতিদিন বাদ মাগরিব বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের সম্মেলন কক্ষে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে সীমিত সংখ্যক দর্শকের উপস্থিতিতে মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে ওই ওয়াজ মাহফিল প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এদিকে বাংলাদেশ বেতারের সঙ্গে যৌথ প্রযোজনায় সপ্তাহব্যাপী মহানবী (সা.)-এর জীবন ও কর্মের ওপর সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের সম্মেলন কক্ষে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে সীমিত সংখ্যক দর্শকের উপস্থিতিতে এ আয়োজন করা হয়। অন্যদিকে স্কুল-কলেজ, আলিয়া ও কওমি মাদ্রাসা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের অংশগ্রহণে জুম অ্যাপের মাধ্যমে ইসলামি সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতার বিষয়- ক্বিরআত, হামদ-নাত, উপস্থিত বক্তৃতা ও জুমআর খুতবা লিখন।

এছাড়া বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের সম্মেলন কক্ষে জুম অ্যাপের মাধ্যমে ক্বিরাআত মাহফিল, হামদ-নাত ও স্বরচিত কবিতা পাঠের আসর আয়োজন করা হয়। এতে দেশের প্রখ্যাত ক্বারি ও শিল্পীরা অংশগ্রহণ করেন। বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের সম্মেলন কক্ষে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে সীমিত সংখ্যক দর্শকের উপস্থিতিতে মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে অনুষ্ঠানগুলো প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা হয়। এছাড়াও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সব বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়, ৫০টি ইসলামিক মিশন ও সাতটি ইমাম প্রশক্ষিণ একাডেমিতে বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করা হয়।

ও/এসএ/