|

৯ রানের জয় দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু সাকিবদের

Published: Mon, 24 Oct 2022 | Updated: Mon, 24 Oct 2022

অভিযাত্রা ডেস্ক: নেদারল্যান্ডসকে ৯ রানে হারিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের যাত্রা শুরু করেছে বাংলাদেশ। এর মধ্য দিয়ে ১৫ বছর পর এ বিশ্বকাপের মূল পর্বে জয় পেলেন সাকিব আল হাসানরা। অস্ট্রেলিয়ার তাসমানিয়া রাজ্যের হোবার্টে সোমবারের (২৪ অক্টোবর) প্রথম ম্যাচে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশ।

উদ্বোধনী জুটিতে সাবধানি শুরু করেন দুই ওপেনার নাজমুল হোসেন শান্ত ও সৌম্য সরকার। ৬ষ্ঠ ওভারের প্রথম বলে প্রথম আঘাত হানেন ভ্যান মিকেরেন। সৌম্য সরকার ফিরেন ১৪ বলে ১৪ রান করে। দলীয় সংগ্রহ তখন ৪৩ রান। পাওয়ার প্লেতে আসে ৪৭ রান। পরের ওভারের প্রথম বলেই শান্তকে প্যাভিলিয়নে ফেরান প্রিঙ্গল। এর আগে ২০ বলে ২৫ রানের ইনিংস খেলেন তিনি।

এরপরই রানের চাকা শ্লথ হয়ে যায় বাংলাদেশের। ৬০ রানের মাথায় ৭ রান করে ফেরেন লিটন কুমার দাস। ৬৩ রানে অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের বিদায়ে আবারও ব্যাটিংধসের শঙ্কা মাথাচাড়া দেয়। ৭৬ রানে ইয়াসির আলী রাব্বিও ফেরেন আউট হয়ে। তবে সাময়িক বিপর্যয় সামাল দেওয়া যায় আফিফ হোসেন ধ্রুবর ব্যাটে। নূরুল হাসান সোহানকে নিয়ে সাবধানে ছোট জুটি গড়েন তিনি। ১২০ রানের মাথায় ৬ষ্ঠ উইকেটের পতন ঘটে সোহানের বিদায়ে। এরপর যা লড়েছে মোসাদ্দেক হোসেনের ব্যাট। তাঁর খেলা ১২ বলে ২০ রানের ক্যামিওর কল্যাণে ভদ্র চেহারা পায় স্কোরকার্ড। ২০ ওভার শেষ ৮ উইকেটে ১৪৪ রানের সংগ্রহ পায় টাইগাররা।

টাইগার
মুস্তাফিজুর-মোসাদ্দেকের উল্লাস।                                                                                           ছবি: সংগৃহীত

১৪৫ রানের লক্ষ্যে খেলতে নামা ডাচদের শুরুতে দুঃস্বপ্ন উপহার দেন টাইগার পেসার তাসকিন আহমেদ। প্রথম বলেই ওপেনার ভিক্রমজিৎ সিংকে ক্যাচ দিতে বাধ্য করেন প্রথম স্লিপে। সামনে ঝুঁকে তা লুফে নেন ইয়াসির আলি রাব্বি। পরের বলেই বাস ডি লিডও উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন নূরুল হাসান সোহানের হাতে।

১৩ রানের মাথায় আফিফ হোসেনের দারুণ থ্রোতে বোলিং প্রান্তের উইকেট ভেঙে দেন সাকিব আল হাসান। রানআউটে কাটা পড়েন ওপেনার ম্যাক্স ও’ডৌড। ১৫ রানের মাথায় টম কুপারও হন রানআউট। এবার দারুণ থ্রো করেন নাজমুল হোসেন শান্ত। কিপার সোহানের ক্ষিপ্রতায় কাটা পড়েন কুপার। তবে এক প্রান্তে একা লড়ে যান কলিন অ্যাকারম্যান। ৯ম উইকেট হিসেবে তিনি যখন ফেরেন, দলের সংগ্রহ তখন ১০১ রান। এর মধ্যে ৪৮ বলে ৬২ রানই অ্যাকারম্যানের। তবে শেষদিকে ভয় ধরিয়ে দেন পল ভ্যান মিকেরেন। ১৪ বলে ২৪ রানের ইনিংসটি শেষ হয় সৌম্য সরকারের বলে, ইনিংসের শেষ ডেলিভারিতে।

ও/এসএ/