|

মুক্ত বাতাসে বাংলাদেশ দল

Published: Fri, 26 Feb 2021 | Updated: Fri, 26 Feb 2021

অভিযাত্রা ডেস্ক : বুধবার নিউজিল্যান্ডে পৌঁছায় বাংলাদেশ দল। পৌঁছেই কোয়ারেন্টিন নিয়ম মেনে তামিম-মুশফিকদের চলে যেতে হয়েছিল ‘বন্দী জীবনে’। দুই দিন হোটেল-বন্দী থাকার পর অবশেষে মুক্ত বাতাসে শ্বাস নেওয়ার সুযোগ হয়েছে তাদের। ৪৮ ঘণ্টা পর বাইরে বের হয়েছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। 

নিজেদের মধ্যে দেখা-সাক্ষাতের সুযোগ হলেও সংস্পর্শে যাওয়ার অনুমতি নেই। ২ মিটার দূরত্ব বজায় রেখে বেশ খানিকটা পথ হেঁটেছেন তারা। সীমিত পরিসরে বাইরে বের হওয়ার সুযোগ হয়েছে বাংলাদেশ দলের। শুক্রবার আধঘণ্টার মতো বাইরে কাটিয়েছেন সৌম্য সরকার-তাসকিন আহমেদ-মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনরা। 

যদিও কেউ কারও কাছাকাছি যেতে পারেননি। দূরত্ব বজায় রেখে মুক্ত বাতাসে নিঃশ্বাস নিয়েছেন তারা। বন্দী জীবন থেকে বাইরে বের হওয়ার অনুমতি মিললেও এখনই অবশ্য অনুশীলনের সুযোগ নেই বাংলাদেশ দলের। 

আরও দুই দিন পর একক অনুশীলনের সুযোগ মিলবে, আর এক সপ্তাহের কোয়ারেন্টিন পার করার পর অনুমতি পাবে দলীয় অনুশীলনের। সবশেষে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন পূর্ণ করলে স্বাধীনভাবে সবকিছু করতে পারবেন ক্রিকেটাররা। 

দুই দিন হোটেলে বন্দী থেকে হাঁপিয়ে উঠেছিলেন ক্রিকেটাররা। দেশের বাইরে গিয়ে এভাবে হোটেল রুমের মধ্যে কারও সঙ্গে দেখা-সাক্ষাৎ না করার অভিজ্ঞতা কখনোই ছিল না তাদের। 

তাই সংস্পর্শে যেতে না পারলেও মুক্ত বাতাসে নিঃশ্বাস নেওয়ার সুযোগ পেয়েই খুশি তাসকিন, ‘আসলে এরকম পরিস্থিতি আগে কখনও আসেনি, এভাবে সময় কাটানো হয়নি। প্রায় ৪৮ ঘণ্টার পর আমরা আধা ঘণ্টা-৪০ মিনিট দুই মিটার দূরত্ব বজায় রেখে হাঁটার সুযোগ পেয়েছি। তাও ভালো লাগছে। 

প্রায় দুই দিনের মতো হোটেল বন্দী থাকার পর বাইরে বের হতে পেরেছি।’দলের সব ক্রিকেটারের জন্য এভাবে সময় কাটানো একেবারে ভিন্ন অভিজ্ঞতা। 

তাসকিন চাইছেন, যত দ্রুত এই সময় শেষ হোক, ‘প্রথম করোনা পরীক্ষার পর আমরা বাইরে বের হওয়ার সুযোগ পেয়েছি। আরও কিছু টেস্ট বাকি আছে। আশা করছি, আমরা দ্রুতই অনুশীলনে নামতে পারবো। এটা একেবারেই ভিন্ন একটা অভিজ্ঞতা। তবে চাইবো যত দ্রুত এই অভিজ্ঞতা শেষ হবে, ততই ভালো।’ 

ক্রিকেট বিশ্বের একমাত্র দেশ নিউজিল্যান্ড, যেখানে কোয়ারেন্টিন পর্ব শেষ করার পর নেগেটিভ ফল এলে স্বাধীনভাবে ঘুরে বেড়ানোর সুযোগ আছে। কারণ দেশটি করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রেখেছে। 

এর আগে সবশেষ ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের আগে নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়েছিল বাংলাদেশ দল। সেবার ক্রাইস্টচার্চের একটি মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় সফর স্থগিত করে ফিরতে হয়েছিল তামিমদের। এবারও খেলা আছে সেই ক্রাইস্টচার্চে। এবারের সফরে বাংলাদেশ তিনটি ওয়ানডে ও তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলবে। 

২০, ২৩ ও ২৬ মার্চ হবে তিনটি ওয়ানডে; ভেন্যু যথাক্রমে ডানেডিন, ক্রাইস্টচার্চ ও ওয়েলিংটন। ক্রাইস্টচার্চের ম্যাচটি দিবা-রাত্রির। ওয়ানডের পর টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে দুই দল। ম্যাচ তিনটি ২৮, ৩০ মার্চ ও ১ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হবে। ভেন্যু যথাক্রমে নেপিয়ার, অকল্যান্ড ও হ্যামিল্টন।

আইআর /