|

ম্যাক্স ফাউন্ডেশনের ‘স্বাস্থ্যকর গ্রাম’ কর্মসূচি অব্যাহত

Published: Sat, 23 Oct 2021 | Updated: Sat, 23 Oct 2021

জাতীয় স্থানীয় সরকার ইনস্টিটিউট (এনআইলজি) এর সহযোগিতায় ম্যাক্স ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ ”স্বাস্থ্যকর গ্রাম” প্রচারণা কর্মসূচি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কাজ করছে।

যার লক্ষ্য হলো প্রকল্পের আওতায় বাংলাদেশের উপকূলীয় ০৫টি জেলা- পটুয়াখালী, বরগুণা, খুলনা, সাতক্ষীরা ও যশোরের নির্বাচিত ৬২টি ইউনিয়নের অন্তর্গত গ্রামগুলোকে ‘‘স্বাস্থ্যকর গ্রাম”এ উন্নীত হওয়ার মান অর্জন করা। 

যার ফলে এসব গ্রামের অধিবাসীরা এমন গ্রামের অধিবাসী হওয়ায় নিজেদেরকে মর্যাদাবান মনে করবে, যেখানে উচ্চতর স্বাস্থ্যবিধির মান অর্জন; উত্তম স্বাস্থ্যবিধিসম্মত আচরণ প্রদর্শন; নিরাপদ পানির ব্যবহার, বর্জ্য ও মল অপসারণ সংক্রান্ত ঝুঁকিপূর্ণ আচরণ পরিহার এবং যথাযথভাবে শিশু স্বাস্থ্য, পুষ্টি, যৌন এবং প্রজনন স্বাস্থ্য ও অধিকার বজায় থাকবে। ফলশ্রুতিতে খর্বিত বিকাশ প্রতিরোধ অবস্থা বিরাজ করবে।  

শনিবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, উক্ত কার্যক্রমটি দাতা সংস্থা ম্যাক্স ফাউন্ডেশনের আর্থিক সহযোগিতায় স্থানীয় উন্নয়ন সংস্থা জাগ্রত যুব সংঘ (জেজেএস) খুলনা জেলার ডুমুরিয়া, বাটিয়াঘাটা ও পাইকগাছা উপজেলার ১৭টি ইউনিয়নে ম্যাক্স নিউট্রি-ওয়াস কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে আসছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ইতিমধ্যে কর্মসূচিটির আওতায় ইউনিয়ন পরিষদের নেতৃত্বে প্রায় ৫০টি গ্রামকে স্বাস্থ্যকর গ্রাম হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।  ঘোষিত স্বাস্থ্যকর গ্রামের মধ্যে হতে ডুমুরিয়া উপজেলার ধামালিয়া ইউনিয়নের টোলনা (হিন্দুপাড়া) নামক স্বাস্থ্যকর গ্রামটি খুলনা জেলা পর্যায় হতে একটি প্রতিনিধি দল পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে উক্ত দলটি ইউনিয়ন পরিষদ, প্রকল্পের অন্তভূক্ত সিএসজি কমিটি ও উঠান দলের সদস্যদের সঙ্গে স্বাস্থ্যকর গ্রামের অগ্রগতি ও মানুষের ওয়াস, নিউট্রেশন ও প্রজনন সংক্রান্ত আচরনের স্থায়ী পরিবর্তনের বিষয় আলোচনা করেন এবং দিক নির্দেশনা প্রদান করেন।   

উক্ত প্রতিনিধি দলে মো. ইকবাল হোসেন (উপ-সচিব), উপ-পরিচালক স্থানীয় সরকারের নেতৃত্বে খুলনা জেলা পর্যায়ের বিভিন্ন স্তরের সরকারি কর্মকর্তা ও আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থা ম্যাক্স ফাউন্ডেশন দি নেদারল্যান্ডস্ এর রিজিওনাল ম্যানেজার শেখ বাবুল, প্রগ্রাম অফিসার, আবুল খায়ের মোহাম্মদ রাশেদ এবং খুলনার স্থানীয় এনজিও জেজেএসের পরিচালক জিয়া আহদেদ ও অন্যান্য স্থানীয় নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করেছেন।

 

ডব্লিউইউ