|

কিস্তির টাকা না পেয়ে গ্রাহকের হাত ভাঙল এনজিওকর্মী

Published: Thu, 09 Sep 2021 | Updated: Thu, 09 Sep 2021

মো. জাহাঙ্গীর আলম, নোয়াখালী প্রতিনিধি: নোয়াখালী পৌর এলাকায় কিস্তির ৮০০ টাকা না পেয়ে মো. বাদশা (৩৫) নামের এক গ্রাহককে পিটিয়ে হাত ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে এসএসএস (সোসাইটি ফর সোশ্যাল সার্ভিস) নামের এক এনজিও’র দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে।

অভিযুক্ত দুজন হলেন এসএসএস এনজিওটির উজিয়ালপুর নোয়াখালী সদর শাখার ব্যবস্থাপক আলমগীর হোসেন ও কিস্তি আদায়কারী গোলাম কিবরিয়া। এমন সন্ত্রাসী আচরণের প্রতিবাদ জানিয়ে এনজিও কর্মকর্তাদের বিচারের দাবি জানিয়েছেন আহত বাদশার স্ত্রী ফাতেমা। 

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন পৌরসভার গোপা এলাকার দিনমজুর বাদশা জানান, বুধবার দুপুর দেড়টার দিকে এনজিওর শাখা ব্যবস্থাপক আলমগীর হোসেন ও কিস্তি আদায়কারী গোলাম কিবরিয়া তাঁর বাড়িতে আসেন। হাতে টাকা না থাকায় তাদের ঘরে বসতে বলেন তিনি। কিছু সময় অতিবাহিত হলে উত্তেজিত হয়ে পড়েন এনজিও কর্মকর্তারা। কিছু সময়ের মধ্যে টাকা এলে দেওয়া হবে বলে জানালে বাদশার সঙ্গে বাগ্বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন তাঁরা। এর একপর্যায়ে আলমগীর বাদশাকে প্রথমে একটি থাপ্পড় মারলে পড়ে যান তিনি। এরপর মাটি থেকে উঠতে গেলে আবার লাথি দিয়ে পুনরায় মাটিতে ফেলে দেন কিবরিয়া। দ্বিতীয়বার পড়ে যাওয়ায় বাঁ হাত ভেঙে গিয়ে পা’সহ শরীরের কয়েকটি স্থানে জখম হয় বাদশার। পরে পরিবারের লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

বাদশা আরও বলেন, গত ২০২০ সালের আগস্ট মাসে এসএসএস এনজিও’র উজিয়ালপুর সদর শাখা থেকে ৩০ হাজার টাকা কিস্তি গ্রহণ করেন তিনি। তাদের নিয়ম অনুযায়ী প্রতি সপ্তাহে ৮০০ টাকা করে ৪৬ কিস্তিতে মোট ৩৬ হাজার ৩০০ টাকা পরিশোধ করতে হবে। গত কয়েক মাসে কিস্তির ৮০ ভাগের বেশি টাকা পরিশোধ করেন তিনি।

এবিষয়ে অভিযুক্ত কিবরিয়া বলেন, বাদশা তাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেছেন। হাতাহাতির বিষয়টি অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে ঘটেছে। এ বিষয়ে এসএসএস উজিয়ালপুর নোয়াখালী সদর শাখায় গিয়ে শাখা ব্যবস্থাপক আলমগীর হোসেনের দেখা পাওয়া যায়নি।

 

ডব্লিউইউ