|

শিগগির সার্ভার চালু করছে ইভ্যালি

Published: Tue, 27 Sep 2022 | Updated: Tue, 27 Sep 2022

অভিযাত্রা ডেস্ক: সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছে ইভ্যালি’র নতুন বোর্ড সদস্যরা। তাঁরা দ্রুত সময়ের মধ্যে সার্ভার চালু করবেন। এরপর গ্রাহকদের টাকাও রিফান্ডের লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছেন। একটি অনলাইন সংবাদমাধ্যমে এ সংক্রান্ত তথ্য দেওয়া হয়েছে।  

এর আগে পাসওয়ার্ড না থাকায় ইভ্যালির সার্ভার খুলতে পারেননি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিকের নেতৃত্বাধীন পর্ষদ। পরে তাঁরা দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ান। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং ই-ক্যাব থেকে একজন করে পরিচালকসহ নতুন বোর্ড গঠন করে দেন আদালত। নতুন বোর্ড এক সপ্তাহের মধ্যে সার্ভার চালুর ঘোষণাও দিয়েছে। আগামী ১৫ অক্টোবরের মধ্যে সার্ভার চালু করা হতে পারে। এ ছাড়া আগামী ১ নভেম্বরের মধ্যেই জুন ২০২১ থেকে যে টাকাগুলো এসক্রোতে আছে সেগুলো রিফান্ড  শুরু করা, এসএসএল কর্মাসের ব্যাংক ডিপোজিট টাকাগুলো ১-৩০ নভেম্বরের মধ্যে রিফান্ড করতে চায় নতুন বোর্ড।

জানা গেছে, মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস (এমএফএস) বিকাশ, রকেটসহ সব মোবাইল ব্যাংকিংয়ের টাকাগুলো ১৫ নভেম্বর থেকে ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যেই রিফান্ড হবে। তবে নগদ গেটওয়ের রিফান্ড পেতে একটু সময় লাগবে, সেটি ১৫ নভেম্বর থেকে আগামী বছরের ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত সময় লাগবে। যাদের অর্ডার ৩০ জানুয়ারি ২০২১ এর আগে তাদের টাকা রিফান্ড হতে সময় লাগবে এখন থেকে আরো ১২ মাস। আর যাদের অর্ডার ৩০ জানুয়ারি ২০২১ থেকে ৬ জুন ২০২১ তাদের টাকা রিফান্ড হতে সময় লাগবে এখন থেকে আরো ১৮ মাস।

যাদের ইভ্যালি থেকে দেওয়া রিফান্ডের চেক আছে এবং যেহেতু চেকের সময় ৬ মাস পেরিয়ে গেছে তাদের চেক-কে বলা হয় স্টেল বা বাসি চেক। কোনো চেক যখন উল্লেখিত তারিখের ৬ মাস বা ১৮০ দিন পরে ব্যাংকে উপস্থাপন করা হয় তখন তাকে স্টেল চেক বলে। এ ধরনের চেকের বিপরীতে ব্যাংক কখনো টাকা দেয় না। আর তাই ইভ্যালি কর্তৃপক্ষ সেই চেকগুলো আবার ফেরত নেবে। এছাড়া সর্বোচ্চ ১৮ মাসের মধ্যেই সব দেনা পরিশোধ করবে বলেও জানা গেছে। 
ইভ্যালির ভেরিফাইড ফেসবুক ভেরিফাইড পেজ থেকে জানা গেছে, প্রতিষ্ঠানটি বর্তমানে দুই পদ্ধতিতে ব্যবসা পরিচালনা করবে। প্রথম তাদের বিজনেস মডেল হবে COD (Cash On Delivery), অর্থাৎ পণ্য হাতে পেয়ে মূল্য পরিশোধ এবং PnP (Pick And Pay), পণ্য পিকাপ পয়েন্ট থেকে সংগ্রহ করে মূল্য পরিশোধ।

ইভ্যালি তাদের ভেরিফাইড এক ফেসবুক পোস্টে বলছে, ইভ্যালি গ্রাহকদের নিরাপদ এবং আকর্ষণীয় কেনাকাটার অংশ হিসেবে নতুন সার্ভিস হিসেবে যুক্ত হয়েছে পিক এন্ড পে। একজন গ্রাহক ইভ্যালির পিক এন্ড পে সার্ভিসের মাধ্যমে আকর্ষণীয় মূল্যে ইভ্যালির ওয়েবসাইট থেকে পণ্য অর্ডার করে সরাসরি ব্র্যান্ড শপ অথবা দোকান থেকে পণ্য সংগ্রহ করে সেলারকেই পেমেন্ট করে দিবে। এতে করে সেলার এবং কাস্টমারদের মধ্যে বিশ্বাস স্থাপন এর পাশাপাশি সেলারদের ব্যাপক পরিচিতি এবং বিক্রি বাড়বে। এবং গ্রাহকও সম্পূর্ণ নিরাপদ কেনাকাটা করতে পারবে। পিক এন্ড পে সার্ভিসে সেলারদের পণ্যের স্টক শোরুমে অথবা সেলারের ওয়্যারহাউসে পৃথকভাবে সংরক্ষণ করবে। 

পিক এন্ড পে সার্ভিস মডেল:
১. কাস্টমারগণ ইভ্যালির ওয়েবসাইটে পিক এন্ড পে সার্ভিস থেকে পণ্য অর্ডার করবে। 
২. অর্ডারকৃত পণ্য সেলারের ব্র্যান্ড শপ অথবা দোকানের ঠিকানা অনুযায়ী স্থান থেকে পণ্য সংগ্রহ করতে হবে। 
৩. অর্ডার কনফার্ম হওয়ার ৭ দিনের মধ্যে গ্রাহককে প্রোডাক্ট সংগ্রহ করতে হবে। 
৪. শপে সরাসরি পণ্য দেখে পণ্যের গুণগত মান পছন্দ না হলে, গ্রাহক সেই অর্ডার বাতিল করতে পারবেন। 
৫. পণ্য হাতে পাওয়ার পর গ্রাহকের অর্ডার প্যানেল থেকে 'রিসিভ' বাটন প্রেস করতে হবে। 
৬. পণ্য সংগ্রহের পর মূল্য পরিশোধ করে অর্ডার প্যানেল থেকে ডেলিভারড মার্ক করতে হবে। 
৭. অর্ডার প্যানেল থেকে রিসিভ বাটন প্রেস করার পর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অটোমেটেড ডেলিভারড দেখাবে। 
৮. সেলার অর্ডার কনফার্ম করার পর গ্রাহক অর্ডার বাতিল করতে পারবে না।

ও/এসএ/