|

যে লক্ষণে শরীরে পুষ্টির অবস্থা জানবেন

Published: Tue, 19 May 2020 | Updated: Tue, 19 May 2020

অভিযাত্রা ডেস্ক : যেকোনো রোগ বা ভাইরাসের আক্রমণ তখনই ঘটে, যখন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকে এবং আপনি যদি পুষ্টিহীনতায় ভোগেন। ক্যালোরি নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে সঠিক খাদ্যাভ্যাস যেমন জরুরি, তেমনি আপনি পরিপূর্ণ পুষ্টি পাচ্ছেন কিনা সেটা খেয়াল করাটাও জরুরি। কিছুকিছু শারীরিক লক্ষণের মাধ্যমে বোঝা যাবে আপনি পুষ্টিহীনতায় ভুগছেন কিনা।

চুল পড়ে যাওয়া : প্রতিদিন ১০০টি চুল পড়ে যাওয়া স্বাভাবিক। কিন্তু যখনই দেখবেন ঘুম থেকে ওঠার পর বেশ কিছু চুল আপনার বালিশে পড়ে আছে, অথবা গোসলের সময় বা চুল আঁচড়াতে গিয়ে লক্ষ করলেন আপনার প্রত্যাশার চেয়ে বেশি চুল পড়ে যাচ্ছে তাহলে বুঝবেন আপনি আয়রনের স্বল্পতায় ভুগছেন।

কী করবেন: আয়রন সমৃদ্ধ খাবার যেমন মাংস, ডিম ,পালং শাক ,কলিজা, ব্রকলি, মটরশুঁটি ইত্যাদি খাবার খান।

শারীরিক ক্লান্তি : খেয়াল করুন আপনার ঘুম কম হচ্ছে কিনা এবং দুশ্চিন্তা ও শারীরিক দুর্বলতা হচ্ছে কিনা। তাহলে আপনি ভিটামিন ডি এর অভাবে ভুগছেন। ভিটামিন ডি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বাড়াতে সাহায্য করে।

কী করবেন: প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫ মিনিট শরীরে সূর্যের আলো লাগান। এছাড়াও টুনা মাছ, কডলিভার অয়েল ,স্যামন, ডিম, মাসরুম ইত্যাদি থেকে ভিটামিন ডি পেতে পারেন।

ত্বকের শুষ্কতা : ভিটামিনের কাজ হলো শরীরের টিস্যু বৃদ্ধিতে সাহায্য করা। যখনই আপনি ভিটামিনের ঘাটতিতে ভোগেন, তখনই আপনার ঠোঁট শুকিয়ে আসাসহ ত্বকের রুক্ষতা ও খসখসে  ভাব বেড়ে যাবে।

কী করবেন: বিটা ক্যারোটিন সমৃদ্ধ খাবার, রঙিন শাক সবজি, গাজর, পালং শাক, ব্রকলি, পাকা আম থেকে ভিটামিন এ পাওয়া যায়।

নখের পরিবর্তন : শরীরে যখন আয়রন ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, জিংকের ঘাটতি হবে, তখন নখ ভেঙে যাওয়া বা চামচের আকৃতি ধারণ করতে পারে। এই পরিবর্তন দেখা গেলে আপনার ইলেক্ট্রোলাইট এর ব্যালেন্স চেক করে নিন।

কী করবেন: দুধ, ডিম, পালংশাক ,মাশরুম, কলা ,মিষ্টি কুমড়ার বিচি ইত্যাদি আপনার খাবারের তালিকায় যোগ করুন।

জিহ্বা ফুলে যাওয়া : জিহ্বা ফুলে উঠলে বা ঘা হলে বুঝবেন আয়রন, ফলিক অ্যাসিড, নায়াসিন, রিবোফ্লাভিন এবং ভিটামিন বি১২ এর ঘাটতি রয়েছে।

কী করবেন: মাছ, মাংস, দুধ, ডিম, কলিজা, সবুজ শাকসবজি খান।

দাঁতের মাড়ি থেকে রক্ত ঝরা : দাঁতের মাড়ি লালচে দেখালে বা মাড়ি থেকে রক্ত ঝরলে বুঝবেন আপনি ভিটামিন সি-এর ঘাটতিতে পড়েছেন।

কী করবেন: আমলকী ,জাম্বুরা ,অরবরই, পেয়ারা ,লেবু ,কমলা, টমেটো ইত্যাদি খাবারে ভিটামিন সি পাওয়া যায়।

ঠোঁটের কোণে ফাটল : খেয়াল করুন আপনার ঠোঁটের কোণে কোনও রকমের ফাটল বা ফুসকুড়ি, ব্যথা ও রক্তক্ষরণ হচ্ছে কিনা। এ ধরনের লক্ষণ দেখলে বুঝবেন আপনি আয়রন ও বি ভিটামিন এর অভাবে ভুগছেন।

কী করবেন: আয়রনসমৃদ্ধ ও বি ভিটামিনযুক্ত খাবার যেমন ডিম ,দুধ ,মাংস, সবুজ শাকসবজি বিশেষ করে কচুর শাক, ব্রকলি ইত্যাদি আপনার খাদ্য তালিকায় যোগ করুন।

চোখে ঝাপসা দেখা : চোখে ঝাপ্সা দেখলে বুঝতে হবে আপনি ভিটামিন এ এর অভাবজনিত রোগে ভুগছেন

কী করবেন: বিটা ক্যারোটিন, রঙিন শাকসবজি গাজর, মিষ্টি কুমড়া, পালং শাক, দুধ ও ডিম জাতীয় খাবার খাদ্য তালিকায় যোগ করুন। 

ও/এসএ/