কোভিড-১৯: মালয়েশিয়ায় জরুরি অবস্থা জারি

Published: Tue, 12 Jan 2021 | Updated: Tue, 12 Jan 2021

অভিযাত্রা ডেস্ক :  কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে মালয়েশিয়ার রাজা সুলতান আব্দুল্লাহ দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করেছেন। তার এ পদক্ষেপ দেশটির প্রধানমন্ত্রী মুহিদ্দিন ইয়াসিনের নড়বড়ে ক্ষমতাকে খানিকটা শক্তিশালী এবং আগাম নির্বাচন করতে চাওয়া বিরোধীদের চাপকে কিছুদিনের জন্য ঠেকিয়ে রাখতে পারবে বলেই মনে করা হচ্ছে। 

মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) টেলিভিশনে দেওয়া ভাষণে মুহিদ্দিন আগামী কিছুদিনের জন্য পার্লামেন্ট স্থগিত রাখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন। জরুরি অবস্থার মধ্যে দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশটিতে নির্বাচন হচ্ছে না বলেও নিশ্চিত করেছেন তিনি। পরিস্থিতি বিবেচনায় মালয়েশিয়ায় এ জরুরি অবস্থার মেয়াদ ১ অগাস্ট পর্যন্ত থাকতে পারে বলে রাজদরবারের বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। 

“বেসামরিক সরকার তার কাজ চালিয়ে যাবে বলে আপনাদের আশ্বস্ত করছি আমি। রাজা যে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন, তা সামরিক অভ্যুত্থান নয়; কারফিউও দেওয়া হবে না। “কোভিড-১৯ মহামারীর ব্যাপকতা কমেছে কিংবা নিয়ন্ত্রণে এসেছে এবং নির্বাচন আয়োজন নিরাপদ- স্বাধীন বিশেষ কমিটি এ ধরনের ঘোষণা দেওয়ার পর যত দ্রæত সম্ভব নির্বাচন করার প্রতিশ্রæতি দিচ্ছি আমি,” বলেছেন মুহিদ্দিন। 

গত বছর মাহাথির মোহাম্মদের জোট সরকার ভেঙে পড়ার পর মার্চে পার্লামেন্টে সামান্য সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় আসা মুহিদ্দিনের প্রধানমন্ত্রী পদে থাকা নিয়ে গত কয়েক মাস ধরে যে অনিশ্চয়তা চলছিল, রাজার জরুরি অবস্থা জারি তা কিছুদিনের জন্য আড়াল করল বলে মনে করছেন পর্যবেক্ষকদের। জরুরি অবস্থা জারির ফলে মুহিদ্দিনের সরকার এখন পার্লামেন্টের অনুমোদন ছাড়াই আইন প্রবর্তনের সুযোগ পাবে। 

কোভিড-১৯ এর সংক্রমণজনিত পরিস্থিতিতে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী কয়েকদিন আগেই দেশজুড়ে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা এবং রাজধানী কুয়ালালামপুর ও ৫টি রাজ্যে ১৪ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেছিলেন। মুহিদ্দিন জানান, করোনাভাইরাসের কারণে ৩ কোটি ২০ লাখ বাসিন্দার দেশ মালয়েশিয়ার স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থাপনা এখন সংকটকাল অতিক্রম করছে। গত সপ্তাহে দেশটিতে প্রথমবারের মতো একদিনে ৩ হাজারের বেশি কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে। 

সোমবার পর্যন্ত মালয়েশিয়ায় সরকারি হিসেবেই আক্রান্ত মিলেছে এক লাখ ৩৮ হাজারের বেশি, মৃত্যু ছাড়িয়েছে সাড়ে পাঁচশ। জরুরি অবস্থার আওতায় সামরিক বাহিনী জনস্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষমতা পেতে পারে; পুলিশকেও অতিরিক্ত ক্ষমতা দেওয়া হতে পারে বলে মঙ্গলবার জানিয়েছেন মুহিদ্দিন। নানান বিধিনিষেধ আরোপ করা হলেও এতে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড ক্ষতিগ্রস্ত হবে না, বলেছেন তিনি।
 

/এসিএন