বিয়ের ফাঁদে ফেলে ভয়ঙ্কর খুনিকে আটক

Published: Sat, 30 Nov 2019 | Updated: Sat, 30 Nov 2019

অভিযাত্রা ডেস্ক : সে এক ভয়ঙ্কর অপরাধী। খুনসহ বিভিন্ন অপরাধে উত্তর প্রদেশের মাহোবা জেলার বিজৌরি গ্রামের এই বাসিন্দার বিরুদ্ধে ১৬টি মামলা ঝুলছে। তাকে ধরার জন্য ১০ হাজার টাকা পুস্কার ঘোষণা করেছিল ওই রাজ্য সরকার। কিন্তু এরপরও তাকে পাকড়াও করতে পারছিলো না উত্তর প্রদেশের পুলিশ প্রশাসন। শেষে অভিনব এক ফাঁদ তৈরি করে তারা। আর এর মাধ্যমে বৃহস্পতিবার (২৯ নভেম্বর) বিজৌরি গ্রাম থেকে অপরাধী বালকিষান চৌবেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। 

তাকে আটক করার জন্য উত্তর প্রদেশের পুলিশ একজন নারী সাব ইন্সপেক্টরের সাহায্য নেয়। কেননা কিছুদিন আগে পুলিশ জানতে পারে বিয়ের জন্য মেয়ে খুঁজছে বিজৌরি। তখন পুলিশ বুন্দেলখণ্ডের এক নারী শ্রমিকের সিমকার্ড সংগ্রহ করে। ওই নারী পুলিশ সেই সিম থেকেই একদিন বালকিষানের নাম্বারে ফোন করেন। তখন তিনি এমন ভাব দেখান যেন ভুল করে তাকে ফোন করে ফেলেছেন। 

এরপর আরো বেশ কিছুক্ষণ দুজনের কথাবার্তা চলে। মেয়েটির মিষ্টি কথায় আকৃষ্ট হয় বালকিষান। এর কয়েকদিন পর ওই নারীকে ফোন করে বালকিষান। এভাবে দুজনের মধ্যে ফোনালাপ চলতে থাকে। এ ঘটনার এক সপ্তাহ পর বালকিষানকে বিয়ের প্রস্তাব দেন ওই নারী। সঙ্গে সঙ্গে ওই প্রস্তাব লুফে নেন অপরাধী বালকিষান। 

এরপর দেখা করার পালা। ঠিক হয় বৃহস্পতিবার উৎসবের দিনে বিজৌরি গ্রামের মন্দিরে আসবেন বালকিষান। সেখানেই দেখবেন তার পছন্দের পাত্রীকে। নির্ধারিত দিনে সাধারণ পোশাকে ঘটনাস্থলে যান ওই পুলিশ সাব ইন্সপেক্টর। তার সঙ্গে থাকা পুলিশরাও ছিলেন ছদ্মবেশে। 

কথামত ফোনে আলাপ করা পাত্রীর সঙ্গে দেখা করতে ছুটে যান বালকিষান। কিন্তু মেয়েটির কাছে যেতেই তাকে হাতকড়া পরিয়ে দেন তার তথাকথিত প্রেমিকা। এরপর শুক্রবার (২৯ নভেম্বর) তাকে আদালতে তোলা হয়। বর্তমানে হাজতে আটক আছেন কুখ্যাত বালবিষান।