সমাজের সমস্ত অসুস্থতা দূর করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

Published: Mon, 02 Dec 2019 | Updated: Mon, 02 Dec 2019

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক আর দুর্নীতিসহ সমাজের সমস্ত অসুস্থতা দূর করতে হবে। এসবের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।  

স্পেনে স্থানীয় সময় রোববার (০১ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় হোটেল ভিলা ম্যাগনায় প্রবাসী বাংলাদেশিদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ঘুষ, দুর্নীতি করে কিংবা ছিনতাই-সন্ত্রাস করে টাকা বানিয়ে সেই টাকা দিয়ে একেবারে ফুটানি দেখিয়ে মনে করতো, আমরা যেন কি হয়ে গেছি। মানে, মুই কি হনুরে ভাব। এই মানসিকতা যেন না থাকে। 

নেতাকর্মীদের সৎ পথে চলার নির্দেশ দিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, অসৎ পথে বিরানি খাওয়ার থেকে সৎ পথে কামাই করে লবণ ভাত খাওয়া ভালো। এটা আমি মনে করি, যা জাতির পিতা শিখিয়েছেন। আমাদের সেইভাবে প্রজন্মকে শিখিয়ে যেতে হবে।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর ক্ষমতা দখলকারীদের অপকর্মের কারণে সমাজে মানুষের চারিত্রিক স্খলন হয়েছে বলে মন্তব্য করেন শেখ হাসিনা।

স্পেনের হোটেল ভিলা ম্যাগনায় বক্তব্য দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীবিগত বছরগুলোতে আওয়ামী লীগ সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপে দেশের অগ্রগতির কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নের ‘ম্যাজিকটা’ কি অনেকে জানতে চান। আমি বলি ম্যাজিকটা কিছু না। দেশকে ভালোবাসি, মানুষকে ভালোবাসি। আমার বাবার কাছ থেকে শিখেছি, দেশের কল্যাণে কাজ করা।

তিনি বলেন, আমার আর কোনো কাজ নেই, বাংলাদেশের জনগণের হোল টাইম ওয়ার্কার আমি। আমি দেশের জনগণের জন্য কাজ করে যাই।

প্রবাসী বাংলাদেশীদের অবদানের কথাও তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রবাসী যারা আছেন আপনাদের যথেষ্ট অবদান আমাদের এই উন্নয়নে। আমাদের রিজার্ভের টাকা দিয়ে, আমাদের নিজেদের ব্যাংকের টাকা দিয়ে আমরা এই ড্রিমলাইনার কিনলাম। অন্য ব্যাংক থেকে, বিদেশ থেকে আমরা ধার নেবো কেন! আমাদের ব্যাংকের টাকা দিয়ে আমরা উন্নয়ন করবো। কাজেই এখানে আপনাদের বড় অবদান রয়েছে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন, পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম, স্পেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হাছান মাহমুদ খন্দকার প্রমুখ।

-এমজে