সফলতার গল্প

রাজুর এগিয়ে চলা

ছোট্ট শিশু রাজু। জন্ম কুমিল্লা জেলার লাকসাম উপজেলার গাজীমুড়া গ্রামে। বাবা সায়েদুল হক রাসেল ট্রাক চালক ও মা হোসনে আরা বেগম রাইস মিলে কাজ করে। বাবা-মা, দুই ভাই, এক বোনের মধ্যে রাজু দ্বিতীয়। পাঁচজনের সংসারে তাদের অভাব অনটন লেগেই থাকত। এছাড়াও প্রায় সময় তার পরিবারে বাবা-মার মধ্যে পারিবারিক কলহ  ও ঝগড়া-বিবাদ লেগেই থাকতো। এদিকে বাড়ির পাশে কামিল মাদ্রাসায় রাজুকে ভর্তি করলেও শিক্ষকের অতিরিক্ত শাসন ও হুজ

ঠিকানা ও অভিভাবকহীন মরিয়ম

নাম মরিয়ম আক্তার (১৩)। সম্ভবত জন্ম ময়মনসিংহ জেলায়। তার জন্মদাতা পিতা-মাতা কে সে জানেনা। জানেনা তার শিকড়ের সন্ধান। বড় হয় নারায়নগঞ্জের বসবাস কারী রোমেলা বেগমের ঘরে। তাকে মেয়েটি পালক মা হিসাবে চিনে। পালক বাবারও কোন খবর নেই। আছে একটি বোন, নাম সুমি।   
    

ফয়সালের বেড়ে ওঠা

আমার জন্ম হয়েছিল কুমিল্লা জেলার লাকসাম থানার আউশপাড়া গ্রামে। জন্মের কয়েক মাস এর মাথায় অসুস্থ জনিত কারণে মা ফাতেমা বেগম চলে যায় না ফেরার দেশে। আর বাবা শাহজাহান সেই সুযোগে আরেকটি বিয়ে করে। ধীরে ধীরে সন্তানের মায়া ত্যাগ করে আমাকে পালক দেয় আমার-ই আপন ফুফুর কাছে। ফুফু আমার লালন পালনের দায়িত্ব নিলেও অভাব অনটনের সংসারে ৫-৬ বছরের মাথায় আটকে যায় আমার দায় -দায়িত্ব পালন করতে। কোন উপায় না দেখে ফুফু আমাকে ২

মায়ের স্নেহ বঞ্চিত জনি 

আমার মা কথা বলতে পারেন না (বাকপ্রতিবন্ধী)। অভাবের কারণে ১২ বছর বয়সে আমার মা গ্রাম থেকে চট্টগ্রাম শহরে চলে আসে। আমার মা চট্টগ্রাম শহরে রেল ষ্টেশন ও নিউমার্কেট এলাকায় মাদক দ্রব্য বিক্রি করতো, আমি ভাঙ্গারী কুড়াতাম এবং মাকে মাদক বিক্রিতে সহযোগীতা করতাম। আমার মা বোবা হওয়ার কারনে পুলিশ তেমন ধরতো না। এভাবে আমি আমার শৈশব, কৈশোর সময় অতিবাহিত করি। 

নয়নের কেস স্টাডি

শিশুর প্রাথমিক তথ্য


শিশুর নাম :          মো: নয়ন (১২)
পিতার নাম:          আবদুর জমির (মৃত)
মায়ের নাম :          মরিয়ম (মৃত)
চাচার নাম (বর্তমান অভিভাবক):  আমান উল্লা
বর্তমান ঠিকানা:         ব্লক জি, ঘর নং- ৪০৫ সফিউল্লাকাটা,  ক্যাম্প -১৬

জয়নুবার কেস স্টাডি

শিশুর প্রাথমিক তথ্য

শিশুর নাম              :    জয়নুবা আক্তার 
পিতার নাম             :     মৃত: নজির আহম্মদ
মাতার নাম             :     মৃত: হাসিনা বেগম 
বয়স                      :     ১৩ বছর
বর্তমান ঠিকানা      :    এ-২ ঐ-২৫২